পুর্বাচলে এবড়োতেবড়ো সংযোগে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মৃত্যুর আতঙ্কে এলাকাবাসী

আবু কাওছার : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে পূর্বাচল উপশহর এলাকার বিভিন্ন আবাসিক গ্রাহকদের মিটার ও বিদ্যুৎ সংযোগ এর অনিয়মের কারণে বিদ্যুৎপৃষ্ঠ হয়ে মৃত্যুর আশঙ্কা এলাকাবাসীর। নিম্নমানের বৈদ্যুতিক তারের মাধ্যমে ঝুঁকিপূর্ণভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিভিন্ন দালাল ও ইলেকট্রিশিয়ানদের মাধ্যমে রাতের আঁধারে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয় বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।


সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়,পূর্বাচলের ২৭ নং সেক্টরের ২০৬ নাম্বার রোডে নজরুল হকের মালিকানাধীন ৩৩ ও ৩৫ নাম্বার প্লটের পাশে এক ট্রান্সফরমার থেকে দুই আড়াইশ মিটার দূরত্বে বিভিন্ন জায়গায় নিম্নমানের বৈদ্যুতিক তার দিয়ে সংযোগ দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে উক্ত প্লটগুলোর রক্ষণাবেক্ষনের দায়িত্বে থাকা সালাউদ্দিন খান বলেন,আমার স্যার তার নিজ সুবিধার্থে ডেসকো কোম্পানিতে আবেদন করে বৈদুৎতিক গাছ, মিটার ও ট্রান্সফরমার ব্যাবস্থা করেন। কিন্তু কিছু অসাধু ব্যাক্তি এই ট্রান্সফরমার থেকে নিম্নমানের তার দিয়ে লাইন দিচ্ছে যা অত্যন্ত ঝুকিপূর্ণ এবং প্লট মালিকদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নিচ্ছে।
এলাকাবাসীর তথ্য মতে খোঁজ নিয়ে জানা যায় , আবুল মিয়ার ছেলে কাওসার (৩৭) মিয়ার বাড়িতে এই সংযোগ দেয়া হয়েছে, আবুল মিয়ার সাথে এ বিষয়ে কথা বলে জানতে পারি, তারা টাকার মাধ্যমে মাসুম নামে এক দালালের সাহায্যে সংযোগ পান। বৈধভাবে আবাসিক মিটার দেয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে ১৭৫০০/-টাকা নেয়। আরেক সুবিধাভোগী মেহেদী হাসান (৩৫) বলেন , ডেসকো কোম্পানির ঠিকাদার লালন এর ক্ষমতা বলে মাসুম নিম্নমানের বৈদ্যুতিক তার দিয়ে অনেক টাকার বিনিময়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে দীর্ঘদিন যাবত এই অবৈধ সংযোগ দিয়ে আসছে। রাস্তার উপর দিয়ে বাঁশের খুঁটির মাধ্যমে এই বৈদ্যুতিক লাইন টানার কারণে বিভিন্ন সময় ঝড়োয়া বাতাস,ট্রাক-লরি বিভিন্ন যানবাহনের সাথে আটকে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

কিছুদিন আগে বৈদ্যুতিক তার ছিঁড়ে রাস্তার উপরে পড়ে নিহত হন একই পরিবারের তিনজন।
সেই ভয় ও আতঙ্ক নিয়ে চলাফেরা করতে হয় এলাকাবাসীদের।

এ বিষয়ে ঢাকা ইলেকট্টিক সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেডের খিলক্ষেত বি ও বি বিভাগীয় শাখার নির্বাহী প্রকৌশালী মো: মনজুরুল হাসান এর সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কোন কথা বলবেনা বলে অপরাগতা জানিয়েছেন।

তাং- ২০/০৯/২০২৩ইং

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *