বিয়ের প্রয়োজনে মুসলিম হয়েছিলাম – প্রবীর মিত্র

বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেতা প্রবীর মিত্রের বয়স এখন ৮২। বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যায় ভুগছেন। ঘরে শুয়ে-বসেই সময় কাটছে তার। সুস্থ হয়ে আবার অভিনয়ে ফেরার স্বপ্ন তার । হঠাৎ করে তার একটি খবর ভাইরাল হয়েছে। তিনি সনাতন ধর্ম থেকে ধর্মান্তরিত হয়ে মুসলমান হয়েছেন। একটি ভিডিওতে প্রবীর মিত্রকে বলতে শোনা যায়, ‘আমি তো কনভার্ট হয়েই ওর মাকে বিয়ে করেছিলাম। তখন মুসলমান হয়েছিলাম। তখন প্রয়োজন হয়েছিল মুসলমান হওয়া।’ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিওতে প্রবীর মিত্র জানিয়েছেন তার কষ্টের কথা। বলেছেন, অভিনয় করতে না পারলে আমার খুব কষ্ট হয়। আমি অভিনয় করতে পারছি না, এটাই আমার বড় কষ্ট। অভিনয়টা আমাকে খুব টানে। অপেক্ষায় আছি, সুস্থ হয়ে আবার অভিনয়ে ফেরার। ভিডিওতে সহকর্মীদের কথাও বলেছেন অভিনেতা। জানিয়েছেন, অনেকেই তার খোঁজখবর নেন। সবাই তার জন্য দোয়া করেন। তিনিও সবার জন্য দোয়া করেন, সবাই যেন ভালো থাকেন, সুস্থ থাকেন। কথোপকথনের একপর্যায়ে ধর্ম নিয়ে জানতে চাইলে প্রবীর মিত্র জানান, বিয়ের সময় মুসলমান হিসেবে কনভার্ট হয়েই বিয়ে করেছিলেন। সেই সূত্র ধরেই খবর ছড়ায় প্রবীর মিত্র মুসলমান হয়েছেন। তবে ধর্ম নিয়ে প্রবীর মিত্রের ভাবনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ধর্ম নিয়ে আমার কোনো বাড়াবাড়ি নাই। সবার উপরে মানুষ সত্য তার উপরে নাই। মানুষ সবার উপরে। এদিকে প্রবীর মিত্রর ছেলে মিথুন মিত্রর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, বাবার মুসলমান হওয়ার যে খবর নতুন করে ছড়িয়েছে, সেটা ঠিক নয়। এ রকম কিছুই ঘটেনি। এটা সত্যি, তিনি বিয়ের সময় ইসলাম ধর্মে কনভার্ট হয়েছিলেন। আমার মা মুসলিম ছিলেন। আমরা ভাইবোনসহ পরিবারের সবাই ইসলাম ধর্মের অনুসারী। কিন্তু বাবা হিন্দুধর্ম রীতি মেনে চলেন। উল্লেখ্য, প্র্রবীর মিত্রের স্ত্রী অজান্তা মিত্র মারা যান ২০০০ সালে। তার তিন ছেলে মিথুন মিত্র, সিফাত ইসলাম, সামিউল ইসলাম। এক মেয়ে ফেরদৌস পারভীন। এদের মাঝে সামিউল মারা গেছেন। প্রবীর মিত্র দীর্ঘদিন সেগুনবাগিচায় বাস করেছেন। এখন সন্তানদের নিয়ে তিনি ধানমন্ডিতে থাকেন। প্রবীর মিত্রের জন্ম ১৯৪১ সালে। ১৯৭১ সালে মুক্তি পাওয়া ‘জলছবি’ সিনেমার মাধ্যমে সিনেমায় নাম লেখান। দীর্ঘ অভিনয়জীবনে অভিনয় করেছেন অসংখ্য সিনেমায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *