মেসি ‘টাইম’ এর বর্ষসেরা অ্যাথলেট

যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত সাময়িকী ‘টাইম’–এর ২০২৩ সালের সেরা অ্যাথলেট হয়েছেন লিওনেল মেসি। মেজর লিগ সকারের (এমএলএস) ক্লাব ইন্টার মায়ামিতে যোগ দেওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবলে অবিশ্বাস্য প্রভাব ফেলায় তাঁকে বার্ষিক এই সম্মানে ভূষিত করেছে টাইম। প্রথম ফুটবলার হিসেবে এই পুরস্কার পেলেন মেসি।

গত জুলাইয়ে মায়ামিতে যোগ দেওয়ার পর মেসি ক্লাবটিকে লিগস কাপ জেতান। ৭ ম্যাচে ১০ গোল করে এই টুর্নামেন্টে মায়ামিকে প্রথম শিরোপা এনে দেন আর্জেন্টাইন তারকা। মায়ামির ইউএস ওপেন কাপের ফাইনালে ওঠায়ও বড় অবদান ছিল মেসির। যদিও ফাইনালে হেরেছিল টাটা মার্তিনোর দল। চোটের কারণে মেসিও ম্যাচটি খেলতে পারেননি। মায়ামিতে প্রথম মৌসুমে ১৪ ম্যাচে ১১ গোল করেছেন মেসি, এর সুবাদে ক্লাবটি এমএলএস প্লে–অফে খেলার কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল।

টাইম ২০১৯ সাল থেকে ‘অ্যাথলেট অব দ্য ইয়ার’ পুরস্কার দিয়ে আসছে। সে বছর সম্মানসূচক এ পুরস্কার পেয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের নারী ফুটবল দল। পরের বছর পুরস্কারটি পেয়েছেন বাস্কেটবল তারকা লেব্রন জেমস। ২০২১ সালে পেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জিমন্যাস্ট সিমোন বাইলস। গত বছর এ পুরস্কার জেতেন নিউইয়র্ক ইয়াঙ্কির বেসবল তারকা অ্যারন জাজ। আর এবার প্রথম ফুটবলার হিসেবে একই বিজয়মাল্য উঠল মেসির গলায়।

এ বছরের অক্টোবরে ক্যারিয়ারের অষ্টম ব্যালন ডি’অর জেতা মেসি গত বছর আর্জেন্টিনাকে জিতিয়েছেন বিশ্বকাপ। এ বছরের মাঝামাঝি সময়ে মায়ামিতে যোগ দিয়ে ঠিকই আবার জ্বলে ওঠেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। 

টাইমের বর্ষসেরা অ্যাথলেট হওয়ার পর সাময়িকীটিকে মেসি জানিয়েছেন, মায়ামিতে যোগ দেওয়ার আগে তাঁর কাছে আরও কিছু প্রস্তাব ছিল। বার্সেলোনায় ফেরার কথা বিবেচনা করেছিলেন, আবার সৌদি আরব থেকে প্রচুর টাকা আয়ের যে প্রস্তাব ছিল, সেটাও ভেবে দেখেছেন। মেসির ভাষায়, ‘সত্যটা হলো, সৌভাগ্যবশত আমার কাছে বিকল্প ছিল। এগুলো নিয়ে আমাকে ভাবতে হয়েছে এবং মায়ামিতে যোগ দেওয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে পরিবারের সঙ্গে কথা বলতে হয়েছে।’

আর্জেন্টিনার সংবাদমাধ্যম ‘মুন্দো আলবিসেলেস্তে’ টাইমকে বলা মেসির কথা আরও বিশদভাবে জানিয়েছে, ‘সবার আগে বার্সেলোনায় ফেরার কথা ভেবেছিলাম। কিন্তু সেটা সম্ভব হয়নি। ফেরার চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু হয়নি। এটাও সত্য যে সৌদি আরবে ফেরার কথাও ভেবেছি শেষ দিকে। তারা প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক লিগ বানিয়েছে, যেটা ভবিষ্যতে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে। দেশটির পর্যটনদূত হিসেবে আমাকে ব্যাপারটি টেনেছিল। আর সেখানে যা যা দেখেছি, ভালোও লেগেছিল। সৌদি আরব ও এমএলএস—দুটি জায়গাই খুব আগ্রহোদ্দীপক ছিল আমার জন্য।’

মায়ামির হয়ে অভিষেক ম্যাচে ক্রুজ আজুলের বিপক্ষে ফ্রি–কিক থেকে গোল করেছিলেন মেসি। এ নিয়ে মায়ামির সহমালিক ডেভিড বেকহাম বলেছেন, ‘মনে আছে, গাড়িতে উঠে ফেরার সময় ভিক্টোরিয়াকে বলছিলাম, “মনে হয় না গাড়ি চালিয়ে ফিরতে পারব।” এর চেয়ে ভালো কিছু হয় না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *