রামগঞ্জ উপজেলা নির্বাচনে এগিয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী আনারস প্রতীকের ইমতিয়াজ আরাফাত

আগামী ২১মে (মঙ্গলবার) দ্বিতীয় ধাপে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে লক্ষীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ব্যাপক জনপ্রিয়তা নিয়ে আনারস প্রতীকে নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন  চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইমতিয়াজ আরাফাত । দীর্ঘদিন লড়াই-সংগ্রাম করে রাজপথ থেকে ওঠে আসা একজন পরীক্ষিত নেতা হিসেবে আবালবৃদ্ধ- বনিতা থেকে শুরু করে সকল মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন তিনি।

গণমানুষের কল্যাণে নিবেদিত প্রাণ হিসেবে ইমতিয়াজ আরাফাত  সুপরিচিত। দীর্ঘদিন বিশ্বস্থতার সাথে আওয়ামী রাজনীতির একজন কর্মী হিসেবে দলের দায়িত্বও পালন করেছেন তিনি। দায়িত্ব পালন কালে আওয়ামী লীগ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড ও জনকল্যাণমূলক কাজ জনসাধারণের মাঝে প্রচারণা করে আসছেন। পাশাপাশি তিনি গরীব অসহায় ও দুস্থ মানুষের মাঝে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে জনবান্ধব নেতা হিসেবেও নিজেকে প্রমাণ করেছেন। এদিকে নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে সাধারণ ভোটাররা ততই বিশ্লেষণ করছে। সাধারণ গরীব, দুঃখী, অসহায় মানুষের পাশে কে দাঁড়াতে পারবে? দিনে-রাতে কাকে কাছে পাওয়া যাবে? কার দ্বারা সমাজ থেকে মাদক নির্মূল করা যাবে? কে বেশি উন্নয়ন করতে পারবে? নানান জন নানান ভাবে আলোচনা করতে শোনা যাচ্ছে । সর্বশেষে ইমতিয়াজ আরাফাতের আনারস  প্রতীকে আস্থা রাখার কথা ভাবছেন সাধারণ ভোটাররা।

তিনি হলেন লক্ষীপুর জেলা  আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি এবং জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান  বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান  এর  দ্বিতীয় ছেলে। ইমতিয়াজ আরাফাত রামগঞ্জ উপজেলার ১০নং ভাট্টা ইউনিয়নের  বাসিন্দা এবং  আওয়ামী ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। তিনি উপজেলার  সর্বদলীয় মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে দাঁড়িয়েছেন। রাজনীতির বাহিরে ও  ধর্ম-বর্ণের বৃত্তের বাইরে গিয়ে, নানা জনহিতকর কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে,  চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ইমতিয়াজ আরাফাতের  ইতিপূর্বের কার্যক্রমগুলো আর্তমানবতার সেবায় অতি ব্যাপক ও বিস্মৃত। তিনি  অসংখ্য অসহায়, গরীব ও দুস্থদের মাঝে অন্ন- বস্ত্র- বাসস্থানের ব্যবস্থা গ্রহনের পাশাপাশি, অনেক  বেকারদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন।

আনারস প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে ভোট যুদ্ধে নামা ইমতিয়াজ আরাফাত এ সময়ের সাহসী একজন নেতা হিসেবে নির্বাচনে তার বিজয় শতভাগ নিশ্চিত হবে বলে প্রবীণ রাজনীতিবীদ ও এলাকার সচেতন মহল মনে করছেন। অন্যদিকে, বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায়  জনপ্রিয়তার দিক থেকে শক্তিশালী প্রার্থী তিনি। দলমত নির্বিশেষে সকলে আনারস প্রতীকের প্রার্থীকে পছন্দ করেন এবং  সমর্থন দিয়ে যাচ্ছেন। 

ইমতিয়াজ আরাফাত  বলেন, জনগণের ভালোবাসাকে পূঁজি করে এবং রামগঞ্জ বাসীর দীর্ঘদিনের দাবীর প্রেক্ষিতে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছি। জনগনের ভোটে নির্বাচিত হলে রামগঞ্জ উপজেলাকে মাদক মুক্ত ও আপামর জনসাধারণের জন্য উন্নয়নমূলক কাজ করে যাবো, ইনশা আল্লাহ।

 তিনি আরো বলেন, প্রতিটি ইউনিয়নে সেবাকেন্দ্র চালু করে মানুষের দোঁড়গোড়ায় সরকারের বিদ্যমান সেবা পৌঁছে দেব। পাশাপাশি জনগণের প্রত্যাশা অনুযায়ী একটি আদর্শ ও স্মার্টউপজেলা  হিসেবে গড়ে তুলবো।

সাধারণ ভোটারদের সাথে কথা হলে, তারা বলেন, তিনি একজন ক্লিন ইমেজের প্রার্থী। তার বিরুদ্ধে সাধারণ জনগণের কোনো অভিযোগ নেই। রামগঞ্জ বাসী এবার তাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছেন। সে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে  চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছে শুনে বিভিন্ন এলাকার বৃদ্ধ, যুবক সকলেই সাধুবাদ ও সমর্থন জানিয়েছেন। তার গণসংযোগে  আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, তাঁতী লীগ, মহিলা লীগ, শ্রমিক লীগ সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতা কর্মীদের পাশাপাশি উপজেলার আপামর জনসাধারণ দলমত নির্বিশেষে অংশ নিচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *