সিদ্ধিরগঞ্জে প্রো- অ্যাকটিভ হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ 

  সিদ্ধিরগঞ্জের প্রো-অ্যাকটিভ হাসপাতালের ভূল চিকিৎসায় ফারজানা আক্তার (৪০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ স্বজনদের।

 শনিবার (২৩ডিসেম্বর) সকালে ওই ভুক্তভোগী হাসপাতালে অবস্থানকালে মারা যান।

মৃত নারীর স্বজনরা জানিয়েছেন,শনিবার  ভোর সাড়ে পাঁচটায় ওই গৃহবধূর বুকে ব্যাথ্যা উঠলে তারা সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ডস্থ প্রো-অ্যাকটিভ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে গেলে ডাক্তাররা হার্ট ফেল করেছে জানিয়ে তাৎক্ষণিক দুটি ইনজেকশন দেয় তাকে। পরে অবস্থার অবনতি  দেখলে এর কিছুক্ষণ পর রুগীকে আইসিইউতে নিয়ে গিয়ে আরও ১০টি ইনজেকশন দেওয়া হয়। একপর্যায়ে ডাক্তাররা যখন বুঝতে পারেন রুগীর মৃত্যু হয়েছে তখনই তাড়াহুড়ো করে রুগীকে ঢাকা নিয়ে যেতে পরামর্শ দেন  হাসপাতাল কতৃপক্ষ। রুগীর সঙ্গে থাকা স্বজনরা দেখতে পান যে  শ্বাস-প্রশ্বাস নিচ্ছে না রোগী তখনই তারা বুঝতে পারেন তার মৃত্যু হয়েছে। 

মৃত নারীর স্বামীর নাম রুহুল আমীন। মৃত্যুকালে তিনি দুটি কন্যা সন্তান রেখে গেছে। 

এই মৃত্যুকে হত্যা দাবি করে ওই নারীর ভাসুরের ছেলে আনু খান বলেছেন, হাসপাতাল কতৃপক্ষকে জিজ্ঞেস করেছিলাম ইনজেকশন কি কি দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা কোনো উত্তর দেয়নি বলেছে তাদের কাছে লিখা আছে। এরা এর পূর্বেও এমন অনেকের সঙ্গে ঘটিয়েছে। এদের বিচার চাই আমরা।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে  প্রো-অ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) মো. রাশিদুল ইসলাম জানান, কার্ডিয়াক সমস্যা নিয়ে ওই রোগী  ভোরে আমাদের হাসপাতালে ভর্তি হয়। পরবর্তীতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে মারা যান। তাকে বাঁচাতে আমরা চেষ্টার কোনো ত্রুটি রাখিনি। রাগের বর্শবর্তী হয়ে হয়তো রোগীর স্বজনরা এই অভিযোগ তুলছেন ।

হাসপাতালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ  (ওসি) মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক জানান, আমাদের কাছে অভিযোগ দেয়া হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমরা মৃত নারীর স্বজনদের সাথে কথা বলেছি মরদেহ ময়নাতদন্ত করার জন্য। কিন্তু তারা মরদেহ ময়নাতদন্ত করবে না বলে লাশ নিয়ে গেছেন। 

নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা: এ এফ এম মুশিউর রহমান বলেন, ভুল চিকিৎসায় মৃত্যু হলে থানায় অভিযোগ দিতে হবে এবং আমাদের বরাবর  লিখিত চিঠি পাঠালে আমরা ব্যবস্থা নিবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *